নীলধ্বজের প্রতি জনা প্রশ্ন ও উত্তর class11

class11  বাংলা বিষয়ে একটি অন্যতম পাঠ্য “নীলধ্বজের প্রতি জনা” |কবিতাটির রচয়িতা মাইকেল মধুসূদন দত্ত ।এই সিরিজে এই গ্রন্থ থেকে সমস্ত প্রশ্নের উত্তর খুব সুন্দর ভাবে সাজানো হয়েছে। প্রিয় ছাত্র-ছাত্রী উত্তরগুলি দেখার পাশাপাশি প্রশ্নের উত্তর লেখার কৌশলটি ভালোভাবে লক্ষ্য কর| class11 বাংলা বিষয়ে আরো অন্যান্য বিষয়ের প্রশ্ন উত্তর জানতে অবশ্যই  click here

নীলধ্বজের প্রতি জনা mcq প্রশ্ন ও উত্তর

 ১) “নীলধ্বজের প্রতি জনা” পত্রকাব্য টির মূল কাব্যগ্রন্থের নাম কি?

  • ক) মেঘনাদবধ কাব্য  
  • খ) বীরাঙ্গনা কাব্য ✓
  • গ) তিলোত্তমাসম্ভব কাব্য
  • ঘ) ব্রজাঙ্গনা কাব্য

২) মহেশ্বরী পুরীর  যুবরাজ হলেন- 

  • ক)অর্জুন 
  • খ) পার্থ
  • গ)  কৃষ্ণ
  • ঘ)  প্রবীর ✓

৩) ফাল্গুনী কার নাম?

  • ক) পার্থ ✓
  • খ) কৃষ্ণ 
  • গ) প্রবীর
  • ঘ) নীলধ্বজ 

৪) জনার কাহিনী মহাভারত মহাকাব্যের কোন পর্বে আছে?

  • ক) ভীষ্মপর্ব 
  • খ) অনুশাসন পর্ব 
  • গ) অশ্বমেধ পর্ব ✓
  • ঘ) বিরাট পর্ব                        

৫) বীরাঙ্গনা কাব্যে “নীলধ্বজের প্রতি জনা”  পত্রিকাটি কতসংখ্যক স্বর্গ ?

  • ক) একাদশ ✓
  • খ) দ্বাদশ
  • গ)  ত্রয়োদশ 
  • ঘ) চতুর্দশ 

৬)) বীরাঙ্গনা কাব্যটি  কি জাতীয় কাব্য?

  • ক)  গীতিকাব্য 
  • খ) মহাকাব্য
  • গ) পত্রকাব্য ✓
  • ঘ) নাট্যকাব্য

৭) জনার অভিশাপ কার বিরুদ্ধে?

  • ক) পুত্র 
  • খ) পার্থ ✓
  • গ)  কৃষ্ণ
  • ঘ) স্বামী                                       

৮)  জনার পুত্রের নাম কি?

  • ক) অভিমন্যু
  • খ) প্রবীর ✓
  • গ) পার্থ
  • ঘ) নীলধ্বজ                          

৯) ফাল্গুনী কার নাম ? 

  • ক)কৃষ্ণ 
  • খ) কর্ণ
  • গ) কুন্তী 
  • ঘ) অর্জুন                                           

১০) মহেষ্বাস শব্দের অর্থ কি?

  • ক) মহারথী 
  • খ) মহাবীর 
  • গ) মহাপুরুষ         
  • ঘ) মহাধনুর্ধর ✓

১১)  ইন্দিরা কে ?

  • ক) ইন্দ্রানী
  • খ)  সরস্বতী
  • গ)  লক্ষী 
  • ঘ) দূর্গা                                           

১২) কুরঙ্গী শব্দের অর্থ কি?

  • ক)  হরিণ ✓
  • খ) সিংহ 
  • গ) ময়ূর
  • ঘ)  কোকিল                                         

১৩)  শিখন্ডী কে ছিলেন?

  • ক) রাজকুমারী অম্বার পরজন্মজাত নপুংসক রূপ ✓ 
  • খ) সূর্যপুত্র কর্ণ
  • গ) পবনপুত্র ভীম
  • ঘ)  দ্রোণ                                             

১৪) জনা তার স্বামীকে অভিশাপ দিয়েছেন কেন?

  • ক) তিনি পুত্রকে হত্যা করেছেন বলে
  • খ)  তিনি পুত্র হত্যাকে মিত্র মেনেছেন বলে ✓
  • গ) তিনি পুত্রকে সিংহাসন থেকে বঞ্চিত করেছেন বলে
  • ঘ) তিনি পুত্রকে মায়ের থেকে বিচ্ছিন্ন করেছেন বলে

১৫)  নর-নারায়ণ ভাবে কাকে পূজা করছেন নীলধ্বজ?

  • ক)  অগ্নি
  • খ)  প্রবীরকে 
  • গ)শিব 
  • ঘ) অর্জুন ও কৃষ্ণকে   ✓   

১৬)  “ছদ্মবেশে লক্ষ্য রাজে ছলিল দুর্ম্মতি।“  কার স্বয়ম্ভর? কে ছলনা করেন সেখানে  ?

  • ক) দময়ন্তীর স্বয়ম্ভরে নল ছলনা করেন
  • খ)   দ্রৌপদির সয়ম্বরে অর্জুন ছলনা করেন ✓
  • গ)  সতীর স্বয়ম্ভরে ব্রম্ভা         
  • ঘ) সীতার স্বয়ম্ভরে রাবন ছলনা করেন 

১৭)   চন্ডালের পদধ্বূলি ব্রাহ্মণের ভালে ? এখানে চন্ডাল ও ব্রাম্ভন  কারা ?

  • ক) অর্জুন ও কৃষ্ণ 
  • খ)  কৃষ্ণ ও নীলধ্বজ
  • গ) অর্জুন ও নীলধ্বজ✓
  • ঘ)  প্রবীর ও নীলধ্বজ

১৮) কর্ন যুদ্ধক্ষেত্রে বিফল হলেন কিভাবে?

  • ক)  অর্জুনের বানে 
  • খ)কৃষ্ণের কৌশলে
  • গ) ব্রম্ভ সাপে✓
  • ঘ) নীলধ্বজের বানে 

১৯) পার্থ খাণ্ডবদাহনে সফল হয়েছিলেন কারণ?

  • ক)  হঠাৎ করে আগুন লেগে গিয়েছিল 
  • খ) কৃষ্ণ পার্থকে খাণ্ডবদাহন সাহায্য করেছিল✓
  • গ)  খান্ডব অরণ্যে গ্রামবাসীরা গাছে আগুন দিয়েছিল
  • ঘ)  অগ্নিদেবকে পার্থ আগুন লাগাতে জোর করেছিল

২০)  কুরুক্ষেত্রে পিতামহ ভীষ্মের মৃত্যু হয়েছিল কারণ

  • ক)  ভীষ্ম যুদ্ধ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলেন
  • খ)  ভীষ্ম বুকে বিষাক্ত তীর ছিল 
  • গ) ভীষ্ম যুদ্ধক্ষেত্রে হূদরোগ হয়
  • ঘ) শিখন্ডীর সাহায্যে পার্থ  তাকে হত্যা করেছিলেন ✓

২১)  “এ জনাকীর্ণ ভবস্থল আজি বিজন জনার পক্ষে”- কারণ

  • ক)  ভবনের লোকেরা অন্য জায়গায় চলে গেছে
  • খ) মহামারীতে প্রাসাদ শূন্য হয়ে গেছে 
  • গ) একমাত্র পুত্রের মৃত্যু হয়েছে✓
  • ঘ) জনা স্বামী জনাকে একা রেখে গেছেন 

২২) বীরাঙ্গনা কাব্যে কোন বিদেশী কবি ও কাব্যের ছায়া আছে?

  • ক)  দান্তের ডিভাইন কমেডি
  • খ)  সেক্সপিয়ারের সনেট
  • গ) হোমারের ইলিয়াড 
  • ঘ)  ওভিদের হিরোইডেস✓

২৩)” অন্যায় সমরে মূঢ় নাশিল  বালকে।“ এখানে মূঢ় কে ?

  • ক) অর্জুন✓
  • খ)  নীলধ্বজ 
  • গ) পার্থ
  • ঘ)  ভীম

২৪) “ কি কাজ বিলাপে প্রভু?”   বিলাপের কারণ কি ?

  • ক) নীলধ্বজ মারা গেছেন 
  • খ) পুত্র হত্যা হয়েছে ✓
  • গ) অর্জুন যুদ্ধে জয়লাভ করেছেন
  • ঘ)  নিজ পুত্রকে হত্যা করেছেন 

২৫) জনার পুত্রের নাম কি?

  • ক)   প্রবীর✓
  • খ)  অভিমন্যু
  • গ) কৃষ্ণ
  • ঘ) পার্থ

২৬) “ স্বৈরিণী”   শব্দের অর্থ কি?

  • ক)  বেশ্যা✓
  • খ)  সাহসিনী 
  • গ) সতী
  • ঘ)  যোদ্ধা

২৭) “ কে না জানে তারে স্বৈরিণী? “ কাকে স্বৈরিণী বলা হয়েছে?

  • ক) কুন্তি✓
  • খ)  দ্রৌপদী
  • গ)  ইন্দিরা
  • ঘ) লক্ষী 

২৮)  পাঞ্চালী     কে ?

  • ক)সত্যবতী
  • খ) দ্রৌপদী ✓
  • গ)  সীতা 
  • ঘ) জনা 

২৯) জনা কোথায় প্রাণ বিসর্জন দেবেন?  

  • ক)  আগুনের 
  • খ)  জাহ্নবীর জলে✓
  • গ) যুদ্ধে
  • ঘ) চিতায় 

 

৩০)  “রে  অবোধ, কে মুছিবে তোরে?” এখানে অবোধ হলেন-

  • ক)  কৃষ্ণ 
  • খ) অর্জুন 
  • গ)  নীলধ্বজ 
  • ঘ) প্রবীর ✓

৩১) বীরাঙ্গনা কাব্যে মোট কয়টি স্বর্গ আছে?

  • ক) ১১ টি✓
  • খ)  ১২ টি  
  • গ)  ১৩ টি
  • ঘ)  ১৪ টি 

৩২) প্রবীর এর পিতার নাম কি?

  • ক)  নীলকন্ঠ
  • খ)  পীতাম্বর 
  • গ) নীলধ্বজ✓
  • ঘ)  পার্থ 

৩৩) “ অন্যায় সমরে মূঢ় নাশিল বালকে”। এখানে বালকটি কে?

  • ক)  পার্থ
  • খ)  কৃষ্ণ 
  • গ) অর্জুন 
  • ঘ) প্রবীর ✓

৩৪) “বাজিছে রাজ তোরণে অনবাদ্য আজি,”।   কি কারনে রনবাদ্য বাজছে ?

  • ক) প্রবীরের হত্যা হয়েছে বলে
  • খ)  অর্জুন যুদ্ধে জয়লাভ করেছেন বলে
  • গ)  অর্জুনকে মিত্র রূপে আহ্বান করা হয়েছে বলে✓
  • ঘ)  নীলধ্বজ যুদ্ধে জয়লাভ করেছেন বলে

for more question answers click here-  নুন কবিতার প্রশ্নোত্ত

৩৫)  “শাশুড়ির যোগ্য বধু!”     এখানে বধূটি হলেন-

  • ক) দ্রৌপদী✓
  • খ) কুন্তী
  •  গ) লক্ষী 
  • ঘ) ইন্দিরা

৩৬)  “ সংহারিল মহাপাপী!”।  এখানে  “মহাপাপী”  হলেন-

  • ক)  কৃষ্ণ 
  • খ) অর্জুন✓
  • গ)  নীলধ্বজ 
  • ঘ) প্রবীর

৩৭) “সংহারিল মহাপাপী!”।  কাকে সংহার করলেন?

  • ক)  পিতামহ ভীষ্ম✓
  • ক)  অর্জুন 
  • গ)  পার্থ
  • ঘ)  প্রবীর 

৩৮)  “কুলটা যে নারী ।“ এখানে য়ার কথা বলা হয়েছে তিনি হলেন-

  • ক)  কুন্তী✓
  • খ)  দ্রৌপদী 
  • গ) রমা 
  • ঘ) ইন্দিরা

৩৯)   “ নিঃসন্তানা করিল আমারে!”।  কে নিঃসন্তানা করলেন ?

  • ক)  কুন্তীর পুত্র অর্জুন✓
  • খ)  কৃষ্ণ 
  • গ) নীলধ্বজ 
  • ঘ)  পার্থ 

৪০)   “আশার লতা তাইরে/ ছিঁড়িলি।“   আসার লতা হলেন- 

  • ক) প্রবীর✓
  • খ) নীলধ্বজ
  • গ)  কৃষ্ণ
  • ঘ)  পার্থ

৪১) “গুরুজন তুমি।,” এখানে গুরুজন হলেন-

  • ক)  নীলধ্বজ✓
  • খ)  কৃষ্ণ 
  • গ) পার্থ
  • ঘ)  ইন্দ্র

৪২) “ কি কুছলে নরাধাম বধিল তাহারে”- কাকে বধ করেছিলেন?

  • ক)  দ্রোণাচার্য ✓
  • খ) ভীষ্ম
  • গ)  ব্রহ্মা
  • ঘ) নীলধ্বজ

৪৩)  “ পাণ্ডব – কীর্তন গান গায়েন সতত।“ কে পান্ডবদের গান গায়েন?

  • ক)  দ্বৈপায়ন ঋষি✓
  • খ) নীলধ্বজ
  • গ)  ব্রহ্মা
  • ঘ) শ্রীকৃষ্ণ

নীলধ্বজের প্রতি জনা কবিতা থেকে বড় প্রশ্নের উত্তরের জন্য click here

নীলধ্বজের প্রতি জনা saq প্রশ্ন ও উত্তর

১)   “ অন্যায় সমরে মূঢ় নাশিল বালকে “ – এখানে মূঢ় কাকে বলা হয়েছে ?
উঃ “ নীলধ্বজের প্রতি জনা”  শীর্ষক পত্র কাব্যে। “ মূঢ়” বলতে জনার পুত্র হত্যাকারী অর্জুনকে বলা হয়েছে।

২)  “ নিভাইতে এ শোকাগ্নি…..” কীভাবে শোকের আগুন নিভবে ? 
উঃ অর্জুন, জনার পুত্রকে অন্যায় ভাবে হত্যা করেছেন। নীলধ্বজ যদি পুত্রের মৃত্যুর প্রতিশোধ নেন, তাহলে “ফাল্গুনীর লোহে “ অর্থাৎ অর্জুনের রক্তে, জনার পুত্র শোকের আগুন নিভবে।

৩) “এ বিষম জ্বালা, দেব , ভুলিব সত্বরে।“- এখানে কোন জ্বালার কথা বলা হয়েছে ?
উঃ অর্জুন জনার পুত্রকে অন্যায় ভাবে হত্যা করেছেন।  পুত্র প্রবীরকে হারিয়ে জনা শোকে জর্জরিত।আলোচিত এই অংশে, পুত্র শোকের জ্বালাকেই জনা বিষম জ্বালা বলেছেন।

৪) “ কি লজ্জা ! দুঃখের কথা, হায় কব কারে? “ – এখানে কোন দুঃখের কথা বলা হয়েছে  ?
উঃ অর্জুন জনার পুত্রকে অন্যায় ভাবে হত্যা করেছেন। অথচ জনার স্বামী নীলধ্বজ পুত্রের মৃত্যুর প্রতিশোধ না নিয়ে, তাকে মিত্র রূপে সেবা করছেন। রাজ্ঞী জনার কাছে এটি চরম দুঃখের বিষয়।

৫) “কী গুণে তুমি পূজ রাজরথি ? “ – কে কাকে কি গুণে পূজা করছেন ?
উঃ “নীলধ্বজের প্রতি জনা “ শীর্ষক পত্র কাব্যে, রাজা নীলধ্বজ অর্জুনকে নরনারায়ন গুনে পুজো করছেন।

৬)” কুলটা যে নারী –“ এখানে কার কথা বলা হয়েছে ? 
উঃ “নীলধ্বজের প্রতি জনা “ শীর্ষক পত্র কাব্যে রাজ্ঞী জনা এখানে ভোজবালা কুন্তীর কথা বলেছেন।

৭) “ সত্যবতীসুত ব্যাস বিখ্যাত জগতে।“ – ব্যাস বিখ্যাত কেন ?  
উঃ সত্যবতীর পুত্র হলেন ব্যাস দেব। মহাভারত রচনা করে ব্যাস দেব বিখ্যাত হয়েছেন জগতে।

৮) “ কামকেলি লয়ে কোলে ভ্রাতৃবধূদ্বয়ে “- ভ্রাতৃবধূদ্বয় কারা?
উঃ  ভ্রাতৃবধূদ্বয় হলেন ব্যাস দেবের ভ্রাতা বিচিত্রবীর্যের দুই বিধবা স্ত্রী অম্বিকা এবং অম্বালিকা ।এই অম্বিকা এবং অম্বালিকার গর্ভেই ধৃতরাষ্ট্র এবং পান্ডুর জন্ম।

৯) “ কুলাচার্য্য তিনি কু – কুলের ? “ – এখানে কাকে কু-কুলের বলা হয়েছে?
উঃ ব্যাস দেব তার ভ্রাতৃবধূদের নিয়ে, কামকেলি করেছেন বলে,জনা ব্যাস দেবকে কু-কুলের বলেছেন  ।

১০) “ শাশুড়ির যোগ্য বধূ!”- শাশুড়ি এবং বধূর নাম কি?
উঃ “নীলধ্বজের প্রতি জনা “ শীর্ষক পত্র কাব্যে রাজ্ঞী জনা ব্যঙ্গ করে, দ্রৌপদীকে তার শাশুড়ির অর্থাৎ কুন্তীর যোগ্য বধূ বলেছেন।

১১) “ ছদ্মবেশে লক্ষ রাজে ছলিল দুর্ম্মতি স্বয়ম্ভরে।“- কে কার স্বয়ম্ভরে ছদ্মবেশে গিয়েছিলেন?
উঃ কুন্তীর পুত্র অর্জুন, দ্রৌপদীর স্বয়ম্ভর সভায় ব্রাম্ভনের ছদ্মবেশে গিয়েছিলেন।

১২) “ কি কুছলে নরাধাম বধিল তাহারে “- কে কাকে বধ করেছিলেন? 
উঃ কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধে অর্জুন অশখামার মিথ্যা মৃত্যু সংবাদ ছড়িয়ে দেন। দ্রোনাচার্য প্রিয় পুত্রের মৃত্যু সংবাদ পেয়ে শোকে অস্ত্র ত্যাগ করেন। সুযোগসন্ধানী অর্জুন সেই সুযোগে দ্রোনাচার্যকে হত্যা করেন।

১৩) “দুঃখের কথা, হায় কব কারে ?”- বক্তা কে ?
উঃ “ নীলধ্বজের প্রতি জনা “ শীর্ষক পত্র কাব্যের এই অংশের বক্তা হলেন রাজ্ঞী জনা।

১৪) “ কেমনে এ অপমান সব ধৈর্য্য ধরি  ? “ – বক্তা কোন অপমানের কথা বলেছেন ?
উঃ “ নীলধ্বজের প্রতি জনা “-নামক পত্র কাব্যে উক্তিটির বক্তা জনা। তার স্বামী নীলধ্বজ পুত্রের মৃত্যুর প্রতিশোধ না নিয়ে তিনি অর্জুনকে নরনারায়ন গুনে পুজো করছেন। জনার কাছে স্বামীর এই আচরণ অপমান বলে মনে হয়েছে।

১৫) “মহারথি প্রথা কি হে, এই মহারথী ?”- কোন কাজ মহারথী প্রথার বিরোধী ? 
উঃ প্রাচীন কালে অস্ত্রে অস্ত্রে সামনা সামনি যুদ্ধকে মহারথি প্রথা বলা হয়। কোন মহান রথি বা যোদ্ধা যদি অন্য কোন মহান রথিকে বিনা অস্ত্রে হত্যা করেন, তাহলে সেটি মহারথী প্রথার বিরোধী কাজ।জনা দেখিয়েছেন যে, অর্জুন এই মহারথী প্রথার বিরোধী কাজ করেছেন।

১৬) “ মরি, কর্ন মহাযশাঃ, “ মহাযশা কর্ণ কিভাবে মারা যান ?
উঃ কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধে ব্রম্ভ সাপে কর্নের রথ চাকা মেদিনী গ্রাস করে। সেই সুযোগে অর্জুন অস্ত্র হীন অবস্থায় কর্নকে হত্যা করেন।

১৭) “নিভাইতে এ শোকাগ্নি।“ কার কীসের শোক ?
উঃ অর্জুন অন্যায় ভাবে জনার পুত্র প্রবীরকে হত্যা করেছেন। রাজ্ঞী জনা তার পুত্র প্রবীরকে হারিয়ে পুত্র শোকে জর্জরিত হয়েছেন।

১৮)“ অন্যায় সমরে মূঢ় নাশিল বালকে।“ ‘মূঢ়’ বলতে কার কথা বলা হয়েছে ?
উঃ “নীলধ্বজের প্রতি জনা “ শীর্ষক পত্র কাব্যে রাজ্ঞী জনা ‘মূঢ়’ বলতে অর্জুনকে বুঝিয়েছেন।

১৯)“ভীরুতার সাধনা কি মানে বলবাহু?” জনা “ভীরুতার সাধনা” কি বুঝিয়েছেন ?
উঃ বলবাহু অর্থাৎ বীরেরা কখনো দুর্বলতার বা ভীরুতার সাধনা করে না । জনা ভীরুতার সাধনা বলতে নীলধ্বজের মত বীরের দুর্বলতার সাধনা করাকে বলেছেন।

২০)”দহলি খান্ডব দুষ্ট কৃষ্ণের সহায় ।“ কে কেন খান্ডব দাহন করেন ?
উঃ অগ্নিদেবের অগ্নিমান্দ্য হলে, ব্রম্ভা তাকে,খান্ডব অরন্য দাহন করে অগ্নিদগ্ধ পশুর মেদ ভক্ষন করতে পরামর্শ দেন। অগ্নিদেব বার বার চেষ্টা করেও খাণ্ডবদাহন করতে পারেননি। তাই তিনি ব্রাম্ভনের ছদ্মবেশে অর্জুনের সাহায্য প্রার্থনা করেন। অর্জুন শর সংযোগে খান্ডব অরণ্য দহন করেন।

২১) “ নাশিল বর্বর তারে।“ কে কাকে নাশ করলেন ?
উঃ কর্নের রথ চাকা  মেদিনী গ্রাস করলে, সেই সুযোগে অর্জুন কর্নকে অস্ত্র হীন অবস্থায় হত্যা করেন।

২২)”  সংহারিল মহাপাপী।“ – কে কাকে সংহার করেন ?
উঃ অর্জুন, শিখন্ডীকে সামনে রেখে পিতামহ ভীষ্ম কে সংহার অর্থাৎ হত্যা করেন।

২৩) “ আশার লতা তাই রে ছিঁড়িলি।“ আশার লতা কে ?
উঃ জনা তার একমাত্র পুত্র প্রবীরকে আশার লতা বলেছেন।

২৪) “ কিন্তু বৃথা এ গঞ্জনা।“ গঞ্জনা বৃথা কেন ? 
উঃ জনা তার স্বামীকে গঞ্জনা দেওয়া বৃথা বলে মনে করেছেন। কারণ, তার স্বামী গুরু জন । তাকে গঞ্জনা দিলে তিনি বিষম পাপে পড়বেন।

২৫) “নিঃসন্তানা করিল আমারে!” কে কাকে নিঃসন্তানা করলেন ?
উঃ অর্জুন জনার পুত্র প্রবীরকে অন্যায় ভাবে হত্যা করে, জনাকে নিঃসন্তানা করেছেন

নীলধ্বজের প্রতি জনা কবিতা থেকে বড় প্রশ্নের উত্তরের জন্য click here

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Read More

Recent